Psychological

প্রেমে পড়েছেন? এই ৬ ধরনের পুরুষের সঙ্গে সম্পর্কের আগেই সাবধান হোন, পরে নাহলে আফসোস করবেন

আপনি কি জানেন, ১৭ নভেম্বর ২০২১ঃ

কয়েক ধরনের পুরুষ আছেন, যাদের মহিলাদের এড়িয়ে চলা উচিত। প্রেমে পড়ে গেলেও, সম্পর্কে যাবেন কি না সেই ব্যাপারে ভেবে দেখুন।

১) ইগো এমন একটা জিনিস যা যে কোনও সম্পর্ককে খারাপ করে দিতে পারে। এদের দেখে খুবই স্মার্ট ও আত্মবিশ্বাসী মনে হলেও লক্ষ্য করে দেখবেন এরা সবসময়ে আপনার সামনে নিজেকে সঠিক প্রমাণ করতে চায় কিনা। এরা কখওই নিজের ভুল দেখতে পায় না। নিজের ভুল বেরিয়ে পড়লে এরা তর্কের বিষয়টাই পাল্টে দেয় কারণ ছোট খাটো বিষয়তেও হেরে গেলেও এদের মেল ইগো হার্ট হয়।

২) আর এক ধরন হয় যারা ভীষণই কেয়ারিং গোছের হয়। কেয়ারিং সঙ্গী সবাই পছন্দ করেন। কিন্তু সবকিছুরই মাত্রা থাকা দরকার। সারাদিন কী খেয়েছ, কখন ঘুম থেকে উঠেছ, কার সঙ্গে রয়েছ, ইত্যাদি মিনিটে মিনিটে ফোন করে খোঁজ নেওয়া অভ্যেস রয়েছে এদের। প্রথম প্রথম ভালো লাগলেও কিছু দিন পরেই দমবন্ধ লাগতে শুরু করতে পারে। এরা পরবর্তীকালে অতিরিক্ত পজেসিভ হয়ে ওঠে।

৩) অতিরিক্ত কেয়ারিং ভাব বা পজেসিভনেস যেমন অসহ্য হয়ে ওঠে। তেমনই অতিরিক্ত গা ছাড়া ভাবও ভালো নয় সম্পর্কের জন্য। এই ধরনের প্রেমিকরা তখনই সময় কাটাবে, যখন তাদের নিজেদের ইচ্ছে ও সময় হবে। প্রেমিকার ইচ্ছে নিয়ে এরা ভাবিত নয়। অথচ প্রেমিকার থেকে অ্যাটেনশন না পেলে এরা খুবই রেগে যায়।

‘প্রেম এসেছিল নিঃশব্দ চরণে’- স্বয়ং কবিগুরুই লিখে গিয়েছেন। কার জীবনে কীভাবে প্রেম আসবে তা কেউই আগে থেকে বলতে পারে না। তাই নতুন প্রেম এলে গা ভাসাতেও সময় লাগে না। ভাগ্যদেবী সহায় থাকলে সেই প্রেম দীর্ঘজীবী হয়। কিন্তু কিছুক্ষেত্রে হঠাৎ প্রেমে পড়ার ফল খারাপও হতে পারে। তাই আগে থেকেই জেনে রাখা ভালো কিছু জিনিস। যেমন কয়েক ধরনের পুরুষ আছেন, যাদের মহিলাদের এড়িয়ে চলা উচিত। প্রেমে পড়ে গেলেও, সম্পর্কে যাবেন কি না সেই ব্যাপারে ভেবে দেখুন। দেখে নেওয়া যাক, কোন ধরনের পুরুষ এড়িয়ে চলবেন।

৪) এদের এক কথায় ক্যাসানোভা বলা যেতে পারে। প্রেমের প্রথম দিক থেকেই এরা যৌনতায় জড়াতে চায়। সম্পর্কে যৌনতা স্বাভাবিক। কিন্তু এদের মূল উদ্দেশ্যই হল যৌনতা। সম্পর্কে যৌনতার চাহিদা মিটে গেলে এরা সম্পর্ক থেকেই আগ্রহ হারিয়ে ফেলে। সম্পর্ক ভেঙে ফেলতেও দেরী করে না।

৫) প্রথম প্রথম এরা প্রেমিকা বলতে অজ্ঞান। কিন্তু সম্পর্কের হানিমুন পিরিয়ড কাটতেই প্রেমিকা কী কী পারে না, এবং প্রেমিকার যাবতীয় খুঁত টেনে বের করে।

৬) অবদমন সম্পর্কের জন্য সবচেয়ে খারাপ। যে প্রেমিক আপনাকে দমিয়ে রাখতে চাইবে তাকে এড়িয়ে চলুন। পরবর্তীতে নাহলে জীবন দুর্বিষহ করে তুলতে পারে এরা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!